ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , , ৮ মুহররম ১৪৪০

কিমের সঙ্গে বৈঠকে ট্রাম্পের সম্মতি

নিউজ ডেস্ক । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: মার্চ ৯, ২০১৮ ৮:৫২ সকাল

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জন উনের সাথে বৈঠক করতে রাজি হয়েছেন।

দক্ষিণ কোরিয়ার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ওয়াশিংটনে ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাতের পর এ কথা জানিয়েছেন। ওই কর্মকর্তারাই কিমের দাওয়াতপত্র ট্রাম্পের কাছে পৌঁছে দেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এই খবর নিশ্চিত করেছে।

এছাড়া টুইট বার্তায় দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিনিধিদের সঙ্গে কিমের সাক্ষাতের বিষয়ে জানিয়েছেন ট্রাম্প। বিগত কয়েকমাসে পাল্টাপাল্টি হুমকির পর এই ঘটনাকে ইতিবাচক মনে করা হচ্ছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বৈঠক অনুষ্ঠিত হবার আগ পর্যন্ত উত্তর কোরিয়া তাদের সব পারমানবিক এবং মিসাইল কার্যক্রম বন্ধ রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা হোয়াইট হাউজ থেকে বের হয়ে জানিয়েছেন, মে মাসের মধ্যে দুই নেতার বৈঠক অনুষ্ঠিত। বৈঠকের সুনির্দিষ্ট তারিখ এবং স্থান এখনো নির্ধারিত হয়নি।

প্রসঙ্গত, পারমাণবিক কর্মসূচি থেকে বিরত রাখতে ২০০৬ সাল থেকে উত্তর কোরিয়ার ওপর বিভিন্ন পর্যায়ের অবরোধ আরোপ করে আসছে জাতিসংঘের ১৫ সদস্যের নিরাপত্তা পরিষদ। সর্বশেষ গত বছরের ডিসেম্বরে নতুন আরও একটি অবরোধ আরোপ করলে দেশটির তেল আমদানি ৯০ শতাংশ পর্যন্ত কমে যায়। ওই অবরোধের পরও বেশ কয়েকটি দূর পাল্লার মিসাইলের সফল পরীক্ষার দাবি করে উত্তর কোরিয়া।

দীর্ঘদিনের নিরবতা ভেঙে গত মাসে দক্ষিণ কোরিয়ায় অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া শীতকালীন অলিম্পিকে আগ্রহ দেখালে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে আলোচনার পথ খোলে। এরই ধারাবাহিকতায় এই সপ্তাহের গোড়ার দিকে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিনিধিরা পিয়ংইয়ংয়ে কিমের সঙ্গে এক অভূতপূর্ব বৈঠকে মিলিত হন। ওই বৈঠকে পরই কিমের বার্তা পৌঁছে দিতে ওয়াশিংটননে ছুটে যান দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিনিধিরা।

ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাতের পর দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা বলেছেন, পারমাণবিক ও মিসাইল পরীক্ষার কর্মসূচি স্থগিত রাখার বিষয়ে সম্মত হয়েছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম। পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন তিনি। দক্ষিণ কোরিয়ায় অনুষ্ঠিত হওয়া শীতকালিন অলিম্পিকে উত্তর কোরিয়ার অংশ নেওয়ার স্বাভাবিক হতে থাকা দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্কের অংশ হিসেবে ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।