ঢাকা, সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ , , ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪০

গোপালগঞ্জের শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ দেশের প্রথম ডিজিটাল ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জ : । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৪, ২০১৯ ৩:০২ দুপুর

দেশের প্রথম ডিজিটাল ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হিসেবে ইতিমধ্যে যাত্রা শুরু করেছেন টেকনোক্র্যাট কোটায় নিয়োগপ্রাপ্ত বর্তমান সরকারের ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ।
ধর্ম মন্ত্রণালয়ে যোগদানের পর পরই তিনি তার সঙ্গে সর্বসাধারণের উন্মুক্ত যোগাযোগের সুযোগ করে দিতে খুলেছেন ফেসবুক পেজ ও টুইটার অ্যাকাউন্ট। ধর্ম মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সর্বশেষ তথ্য জানার জন্য এবং যে কোনো সেবা ও পরামর্শের জন্য ই-মেইল ও ফোন নম্বরও উন্মুক্ত করেছেন তিনি। শুধু তাই নয়, তিনি দায়িত্ব নেয়ার পর ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বইপত্রের ডিজিটাল কপি প্রস্তুুত করার পাশাপাশি মন্ত্রণালয়ে বিভিন্ন কার্যক্রম ডিজিটালাইজেশন করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।
ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তা সুত্রে জানা যায়, বর্তমান সরকারের দুই দফায় একাধিক ব্যক্তি ধর্মমন্ত্রী দায়িত্ব পালন করলেও কেউ ডিজিটাল ছিলেন না। ডিজিটাল ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হিসেবে তিনিই প্রথম।
ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর একান্ত সহকারী সচিব হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত গণমাধ্যম কর্মী নাজমুল হক সৈকত ও জনসংযোগ কর্মকর্তার পরামর্শে ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর ফেসবুক, টুইটার, ই-মেইল ও ফোন নম্বর উন্মুক্ত করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। ইতোমধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও টুইটারে ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।
কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক থেকে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ ধর্ম মন্ত্রণালয়কে দুনীর্তিমুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছেন। বলেছেন, তিনি নিজে দুনীর্তি করবেন না ও কাউকে দুনীর্তি করতেও দেবেন না। তিনি হজ ব্যবস্থাপনাকে আরও অধিকতর সুষ্ঠু ও সুন্দও ভাবে পালনের প্রয়োজনীয় সকল উদ্যোগ গ্রহণ করবেন।
শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হিসেবে যোগদানের পর ইতোমধ্যেই চলতি বছরের হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া যাত্রী প্রতি ১০ হাজার টাকা কমিয়েছেন। গত বছর পর্যন্ত বিমান ভাড়া ১ লাখ ৩৮ হাজার টাকা থাকলেও এবার ১ লাখ ২৮ হাজার টাকা ভাড়া নির্ধারণ করেছেন তিনি। এ ছাড়া বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সৃষ্ট বিরোধ নিষ্পত্তি করে আগামী ১৫ থেকে ১৭ ফেব্রুয়ারি টঙ্গীর তুরাগ তীরে ইজতেমা পালনের উদ্যোগে সফল হয়েছেন।
ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে যে গুরু দায়িত্ব দিয়েছেন তা আমি দেশের আলেম-ওলামা, পীর-মাশায়েখদের সাথে পরামর্শ করে সে ভাবে কাজ করতে চাই। আমি দেশের শীর্ষ একটি ঐতিহ্যবাহী মাদরাসার ছাত্র ছিলাম এবং দীর্ঘ দিন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হওয়ার কারণে দেশের সর্বস্তরের আলেম-ওলামা, পীর-মাশায়েখ, ধর্ম বোদ্ধা এবং সকল ধর্মের ধর্ম গুরুদের সাথে গভীর সম্পর্ক রয়েছে। আমি সকলের সহযোগিতা নিয়েই এই মন্ত্রণালয় পরিচালনা করব।