ঢাকা, বুধবার, ১৮ জুলাই ২০১৮ , , ৫ জ্বিলকদ ১৪৩৯

জীবন দিয়ে হলেও আপনাদের ভাগ্য পরিবর্তন করবো : বন্যার্তদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: আগস্ট ২০, ২০১৭ ১২:০৯ দুপুর

ঢাকা :: রোববার (২০ আগস্ট) বিকেলে কু‌ড়িগ্রা‌মের রাজারহাট উপ‌জেলার পাঙ্গা রানি লক্ষ্মী প্রিয়া স্কুল অ্যান্ড ক‌লেজ মা‌ঠে বন্যার্ত‌দের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ উপলক্ষে আয়োজিত সমা‌বে‌শে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। এর আগে তিনি দিনাজপুর থেকে হেলিকপ্টারে করে এই জেলায় আসেন।

শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে যেকোনো দুর্যোগ মোকাবেলা করতে পারে। আমি জানি আপনাদের সেই বিশ্বাস আছে। আল্লাহর কাছে সবসময় দোয়া করি, তিনি যেন আমার দেশের মানুষকে রক্ষা করেন। আপনারাও সজাগ থাকবেন।

এ সময় জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সচেতন হতেও কুড়িগ্রামবাসীকে আহ্বান জানান তিনি।

বন্যার্তদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, টিন দেবো, নগদ টাকা দেবো। অতি দরিদ্র যারা তাদের ঘরবাড়ি তৈরি করে দেবো। আশ্রয়ণ প্রকল্প করেছি। একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের কাজ চলছে, এসবের আওতায় মানুষ সেবা পাবেন। এছাড়া বিনা জামানতে দুই লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। কেউ অভাবে থাকবেন না, খাদ্য, ‍ওষুধ কোনো কিছুর অভাব হবে না।

এছাড়া সারা বাংলাদেশকে ভিক্ষুকমুক্ত করা হচ্ছে বলেও এসময় বক্তব্যে তুলে ধরেন শেখ হাসিনা।

বিভিন্ন এনজিও সংস্থার উদ্দেশ্যে বলেন, এনজিওগুলো গরিব মানুষকে ঋণ দিয়ে বেশি সুদ নেয়, তারা যেন অত্যাচার না করেন আমি এই আহ্বান জানাবো।

বিত্তবানদের উদ্দেশ্যে শেখ হাসিনা বলেন, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় আপনারা এগিয়ে আসুন। সরকারের পাশাপাশি আপনারাও সহায়তা করুন।

‘‘উত্তরে এখন বন্যার পানি নেমে গেছে। ফলে মধ্যাঞ্চল ফরিদপুর, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জে পানি দেখা দিয়েছে। সেজন্য সবরকম প্রস্তুতি আমরা নিয়েছি। সাধারণ মানুষের জন্য যা যা করণীয় তাই করে যাবো। প্রয়োজনে বাবার মতো জীবন দিয়ে হলেও আপনাদের ভাগ্য পরিবর্তন করবো’’ যোগ করেন প্রধানমন্ত্রী।

কুড়িগ্রাম: বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শনে দিনাজপুরের পর কুড়িগ্রামে গেলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (২০ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে হেলিকপ্টারে করে তিনি কুড়িগ্রাম পৌঁছান।

কু‌ড়িগ্রা‌মে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণের অপেক্ষায়

ত্রাণ বিতরণ, সভার পর নামাজ ও মধ্যাহ্ন বিরতি শেষে তিনি কুড়িগ্রামের উদ্দেশে দিনাজপুর ত্যাগ করেন। এছাড়া বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পুনর্বাসন বিষয়ে আগামীতে করণীয় সম্পর্কে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর উত্তরবঙ্গ সফর ও সফরসূচি সফল করতে সার্বিক দিক তদারকি করেছেন জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম।