ঢাকা, সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ , , ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪০

তাহিরপুরে বাবুলের চমক নেতাকর্মী ও সমর্থকদের আনন্দ উল্লাস

জাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া,সুনামগঞ্জ । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১৯ ১২:১৪ দুপুর


সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজোয় পরিষদ নির্বাচনে আ,লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়ে চমক দেখিয়েছেন সুনামগঞ্জ জেলা আ,লীগের সমবায় ও কৃষি বিষয়ক সম্পাদক করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল। কারন তার নাম তাহিরপুর উপজেলা থেকে জেলা নেতৃবৃন্ধের কাছে গেলেও কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্ধের কাছে পৌছায় নি। জেলা থেকেই তার নাম কেন্দ্রে পাঠানো হয় নি। তার পরও সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় একজন সাদা মনের মানুষ তার কর্মের রয়েছে অনেক গুন। যে গুনের কারনে তিনি পছন্দের সর্বজন গ্রহনযোগ্য নিজ গুনে সমুজ্জল হাওর পাড়ের তৃনমূলের আ,লীগের নেতাকর্মীসহ সর্বস্থরের জনসাধারনে মাঝে। এবার তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে চাইছিলেন তৃনমূল আ,লীগের নেতাকর্মীসহ সর্বস্থরের জনসাধারনে দাবীর প্রেক্ষিতে। সাধারণ মানুষের সমর্থনে নিয়ে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে জনমত জরিপে ছিলেন সবার থেকে এগিয়ে। তিনিও মনে প্রানে বিশ্বাস করতেন যে তিনি মনোনয়ন পাবেন।
শনিবার তার নাম আ,লীগের দলীয় মনোনীত প্রার্থীদের তালিকায় প্রকাশিত হবার পর পর উপজেলা জুড়েই আনন্দ মিছিল বের করেন সর্বস্থরের জনসাধারন।
তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের বাদাঘাট বাজারে দুপুরে আনন্দ মিছিল বের করে বাজারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন পয়েন্ট প্রদক্ষিন করে মধ্য বাজারে আ,লীগের কায্যালয়ের সমানে এসে মিলিত হয় নেতাকর্মীগন। এসময় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য রাখেন,বাংলাদেশ শ্রমিকলীগ বাদাঘাট ইউনিয়ন শাখার সভাপতি আবু তাহের,আ,লীগ নেতা নুরুল হক মাষ্টার,ফজলুল হক,হযরত আলী,হাজী আলী আহমদ,একিনুর মিয়া,তোফাজ্জল হোসেন প্রমুখ।
বক্তাগন বলেন,তাহিরপুর উপজেলা আ,লীগের স্বৈরাচার বিরোধী,চারদলীয় জোট সরকার বিরোধী,ওয়ান ইলিভেনের সময় জন নেত্রী শেখ হাসিনার মুক্তির আন্দোলনের সময় রাজপথে দলীয় নেতা কর্মী সমর্থকদের সংগঠিত করে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন আওয়ামীলীগ নেতা করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল। বার বার গ্রেফতার হামলা মামলা নির্যাতনের স্বীকার হয়েছেন। ত্যাগী নিবেদিত নেতা,যিনি নির্যাতিত নিপীড়িত মানুষের অধিকার আদায়ের জন্য আজীবন সংগ্রাম করে যাচ্ছেন যার কাছে যে কেউ বিপদে পড়ে গেছে কোনো দিন খালি হাতে ফিরিয়ে দেন নি। সাদামনের এই মানুষটি সারাজীবন সকল লোভ লালসার উর্ধ্বে থেকে পরিচ্ছন্ন রাজনীতি করে যাচ্ছেন,শুধু নিরীহ নির্যাতিত মানুষের অধিকার আদায়ের জন্য কিন্তু নিজের জন্য কিছুই করেন নি সব কিছু উজার করে বিলিয়ে দিয়েছেন মানুষের জন্য। তিনি ত্যাগী নেতা হিসাবে আ,লীগের মনোনয়ন পাওয়ায় আমারা অনেক খুশি।

আওয়ামীলীগ নেতা করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল,আমি এই এলাকার সন্তান। আমি নিজের জন্য রাজনীতি করেনি। শুধু জনগনের স্বার্থে বঙ্গবন্ধু ও তার কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার আদর্শ নিয়ে রাজনীতি করেছি। তাই সবাই চাইছে আমি এবার তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে। সবার আশা ও আমিও আশা আর বিশ্বাস ছিল দলীয় মনোনয়ন আমিই পাব পেয়েছি। কারন আমার অতিথ কর্মই দলীয় মনোনয়ন পাবার দলীল হয়েছে। এবার সবাই ঐক্য বদ্ধ হয়ে সকল বেধাবেধ ভুলে আমাকে নির্বাচিত করবে। আর নির্বাচিত হয়ে সবাইকে সাথে নিয়ে একটি আদর্শ ও যুগপোযুগি উপজেলা গড়ে সারা বাংলাদেশ ও দেশের বাহিরে আলোচিত করতে চাই।