ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ , , ২ রবিউস সানি ১৪৪০

প্রসঙ্গ-মনোনয়ন: কোথাও যেন ভুল হচ্ছে !

নূর মোহাম্মদ (নূর) । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: নভেম্বর ২৭, ২০১৮ ২:০৪ দুপুর

দোহা (কাতার) থেকে :: কোথাও যেন ভুল হচ্ছে। একটা সময় কামাল, মান্না, কাদের সিদ্দিকী, আবু সাইয়িদ, একে খন্দকার, সুলতান মনসুর, ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম, গোলাম মাওলা রনিরা আমার-আপনার চাইতে বড় আওয়ামীলীগার ছিল। আজ কেউ কেউ মুজিব কোট গায়ে অন্য পথে হাঁটছে। ভুলটা হয়ত শুরুতে ছিল, না হয় ভুল এখন হচ্ছে। শুরুতে ভুল এজন্য বললাম তারা যে বিশ্বাসঘাতক সেটা আগে চিনতে না পেরে তাদেরকে দলের ও সরকারের বেশ শীর্ষ স্থানে বসিয়েছিলাম কেন? আর ভুলটা যদি এখন হয় তাহলে দলে নেতা-কর্মীর অনুভূতি-অভিমান, অপ্রাপ্তি এসব বোঝার সময় এসেছে।

গত দশ বছর ধরে মাননীয় নেত্রী শেখ হাসিনা দেশকে এগিয়ে নেয়ার মনোনিবেশে দেশ পরিচালনায় কর্মব্যস্ত আছেন, নেত্রীর বড় ধরনের হস্তক্ষেপ ছাড়া দল কার্যত সাধারণ সম্পাদকের বিচরণে পরিচালিত হয়ে আসছে। সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ২৩ অক্টোবর ২০০৯ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন। সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম নিছক একজন ভদ্রলোক এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন নিবেদিত প্রাণ কিন্তু তাঁর দায়িত্বকালে তিনি নেতা কর্মীদের পাশে ঘেষতে দেননি।

অন্যদিকে ২০১৬ সাল থেকে অদ্যাবধি দলের সাধারণ সম্পাদক আছেন জনাব ওবায়দুল কাদের। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছাড়াও তিনি একাধারে প্রথমে সড়ক পরিবহন ও পরে সেতু মন্ত্রণালয়েরও দায়িত্বে আছেন। আর দশ জন মানুষের মত তাঁরও সীমাবদ্ধতা থাকবে সেটাই স্বাভাবিক। পার্থক্য এখানেই – বঙ্গবন্ধু মন্ত্রিত্ব ছেড়ে দলীয় পদে বহাল করেছিলেন নিজেকে আর আমরা বঙ্গবন্ধুর চেয়েও বড় মাপের রাজনীতিবিদ!!!

প্রায় তিন দশক ধরে দেশের বাহিরে আছি, রাজনৈতিক অভিলাষ নেই কিন্তু বঙ্গবন্ধুর গড়া রাজনৈতিক দলটির প্রতি আবেগ, অনুভূতি, অনুরাগ, আদর, চেতনা, ভাবপ্রবণতা ও গৌরবের সাথে একটা অদৃশ্য সুতোয় বাঁধা আছি; থাকবো আগামীতেও। তাই দলের যে কোন ক্রান্তিলগ্নে, সংকট মুহূর্তে খুবই বিচলিত হয়, আহত হই। আরও আহত হই যখন দেখি আব্দুর রহমান বদি আসনে রাজনীতিতে সম্পৃক্ত না থাকা তার স্ত্রী শাহীনা আক্তার চৌধুরী মনোনয়ন পেয়ে যায় খুব অনায়াসে কিন্তু আলহাজ্ব খোরশেদ আলম সুজনের মত একজন ছাত্রলীগ থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতিজ্ঞ জীবনের শেষ অবস্থায় এসে একটি মনোনয়নের আশায় অশ্রুসিক্ত হতে হয়। তাই বলছিঃ আমাদের কোথাও যেন ভুল হচ্ছে।

# লেখক : সাধারণ সম্পাদক-বাংলাদেশ লেখক-সাংবাদিক অ্যাসোসিয়েশন,  কাতার এবং সাধারণ সম্পাদক-বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কাতার শাখা।