ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ , , ২ রবিউস সানি ১৪৪০

ফুটবলেও আমরা আন্তর্জাতিকভাবে সফলতা অর্জন করবো : সিটি মেয়র

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: নভেম্বর ১০, ২০১৮ ৪:০৪ দুপুর

শনিবার (১০ নভেম্বর) বিকেলে নগরের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ বিভাগীয় ও জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (বিডিডিএফএ) আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। বিডিডিএফএ অনুর্ধ্ব ২০ ফুটবল খেলোয়াড় বাছাই নিয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘ফুটবলের মাদার সংগঠন হচ্ছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। স্বাভাবিক কারনে তাই ফেডারেশনের প্রতি আমাদের প্রত্যাশা বেশি। কিন্তু ব্যক্তি পর্যায়েও আমাদের দায়িত্ব আছে। সে দায়িত্ববোধ থেকেই আমরা অ্যাসোসিয়েশন গঠন করেছি। কারও আলোচনা-সমালোচনা আমাদের কাজ নয়। ফুটবলের উন্নয়নেই আমরা কাজ করতে চাই।’

তিনি বলেন, ‘প্রতিটি জেলা থেকে ভালো মানের খেলোয়াড় তুলে আনতে আমরা কাজ শুরু করেছি। এ লক্ষ্যে চট্টগ্রাম বিভাগের ১১টি জেলা থেকে ১১০ জন খুদে খেলোয়াড়দের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তাদের মধ্য থেকে প্রশিক্ষণের জন্য ৩০ জন খেলোয়াড় বাছাই করা হবে।’

মেয়র বলেন, ‘বাছাইকৃত খেলোয়াড়দের দেশীয় এবং বিদেশী কোচ দিয়ে ৪৫ দিনের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এর মধ্যে যারা ভালো করবে তাদের নিয়ে বিভাগীয় দল গঠন করা হবে। ৮টি বিভাগের এরকম ৮ টি দল নিয়ে আমরা জাতীয় পর্যায়ে ফুটবল লীগের আয়োজন করবো।’

‘আশা করি এ চেষ্টার মাধ্যমে ফুটবলের উন্নয়ন হবে। জাতীয় দলে ভালো খেলোয়াড় এর অভাব দূর হবে। ফুটবল এগিয়ে যাবে। অন্যান্য খেলার মতো ফুটবলেও আমরা দেশীয় এবং আন্তর্জাতিকভাবে সফলতা অর্জন করবো।’ বলেন আ জ ম নাছির উদ্দীন।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ বিভাগীয় ও জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন এর মহাসচিব ও সাইফ পাওয়ার টেক এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক তরফদার রুহুল আমিন বলেন, ‘জাতীয় ফুটবল দলের জন্য ‘পাইপ লাইন’ তৈরি করতেই আমরা অনুর্ধ্ব ২০ ফুটবল খেলোয়াড়দের বাছাই শুরু করেছি। ২০ বছরের এ খোলোড়দের নিয়ে যদি আমরা প্রশিক্ষণ শুরু করতে পারি, তাহলে আগামী ৪-৫ বছরের মধ্যে জাতীয় দলের জন্য তারা একেকজন অ্যাসেট হয়ে দাঁড়াবে।’

তিনি বলেন, ‘দেশব্যাপী ফুটবলের জাগরন সৃষ্টি করতে অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে ৬৪ জেলার মধ্যে এখন পর্যন্ত ৪০টি জেলায় ফুটবল লীগ সম্পন্ন করা হয়েছে। বাকী ২৪টি জেলায়ও ডিসেম্বরের আগে ফুটবল লীগ সম্পন্ন করা হবে। এরপর বিভাগীয় পর্যায়ে আমরা টুর্নামেন্ট এর আয়োজন করবো। সবার সহযোগিতা পেলে দ্রুতই পাল্টে যাবে দেশের ফুটবলের চিত্র।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আলী আব্বাস, ক্রীড়া সংগঠক সিরাজুল ইসলাম আলমগীর, আশিকুর রহমান মিঠু।