ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ , , ২ রবিউস সানি ১৪৪০

বারী সিদ্দিকীর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

নিউজ ডেস্ক,ঢাকা । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০১৮ ৭:৫৭ সকাল

 

বাংলাদেশের খ্যাতিমান সংগীত শিল্পী, গীতিকার ও বংশী বাদক আবদুল বারী সিদ্দিকীর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী আজ শনিবার। গেলো বছরের ১৭ নভেম্বর রাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হলে তাকে ঢাকায় স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। তাঁর শারীরিক অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় তাকে যেখানে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। ২৪ নভেম্বর তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বরেণ্য এই সঙ্গীত শিল্পী গ্রমীণ লোকসংগীত ও আধ্যাত্মিক ধারার গানে অগ্রণী অবদান রেখে বাংলার মানুষের হৃদয়ে আসন করে নিয়েছেন।

তার গাওয়া ‘শুয়া চান পাখি, ‘আমার গায়ে যত দুঃখ সয়’, ‘সাড়ে তিন হাত কবর’, ‘পুবালি বাতাসে’, ‘তুমি থাকো কারাগারে’, ‘রজনী’, ‘আমার গায়ে যত দুঃখ সয়’, ‘ওগো ভাবিজান নাউ বাওয়া, ‘মানুষ ধরো মানুষ ভজো’ গান গুলো আজও বাংলার মানুষের মুখে মুখে। বারী সিদ্দিকী ১৯৫৪ সালের ১৫ নভেম্বর বাংলাদেশের নেত্রকোনা জেলায় এক সঙ্গীতজ্ঞ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ওস্তাদ আমিনুর রহমান, দবির খান, পান্নালাল ঘোষ সহ অসংখ্য গুণীশিল্পীর সরাসরি সান্নিধ্য লাভ করেন। এক সময় তিনি বাঁশির প্রতি আগ্রহী হয়ে ওঠেন ও বাঁশির ওপর উচ্চাঙ্গসঙ্গীতে প্রশিক্ষণ নেন। নব্বইয়ের দশকে ভারতের পুনে গিয়ে পণ্ডিত ভিজি কার্নাডের কাছে তালিম নেন। দেশে ফিরে এসে লোকগীতির সাথে ক্লাসিক মিউজিকের সম্মেলনে গান গাওয়া শুরু করেন। লোকসঙ্গীত ও ধ্রুপদী ধাচের কিংবদন্তী বারী সিদ্দিকী ২০১৪ সালে প্রবাস প্রজন্ম জাপান সম্মাননায় ভূষিত হোন।