ঢাকা, বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ , , ৬ সফর ১৪৪০

‘বালাসী-বাহাদুরাবাদ টানেল নির্মান হলে উত্তরাঞ্চলের পরিবর্তন ঘটবে’

ফরহাদ আকন্দ, গাইবান্ধা প্রতিনিধি । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: অক্টোবর ৫, ২০১৮ ৩:১০ দুপুর

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপন বলেছেন, নৌকায় ভোট দিলে দেশের উন্নয়ন ও শান্তি অব্যাহত থাকবে। দেশের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প নাই। আমাদেরকে উন্নত রাষ্ট্রের দিকে ধাবিত হতে হলে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আবারও আওয়ামী লীগ সরকারকে ক্ষমতায় আনতে হবে।

শুক্রবার (০৫ অক্টোবর) বিকেলে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নের কছিম উদ্দিন খলিফার উঠানে কঞ্চিপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের উদ্যোগে কর্মী সমাবেশে মাহমুদ হাসান রিপন এসব কথা বলেন।

ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপন আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এলে গরীব দুঃখী মানুষের উন্নয়ন হয়। মানুষের জীবনমান উন্নয়নে শেখ হাসিনার সরকারের কোন বিকল্প নাই। নিম্ন আয়ের মানুষ ও পরিশ্রমী মানুষের প্রতি এ সরকারের নজর রয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে মানুষের দীর্ঘদিনের আশা ও প্রত্যাশা এবং নিরাপদ জীবনের আকাঙ্খা যুমনা নদীর তীর সংরক্ষণের কাজ করা হয়েছে। বালাসী-বাহাদুরাবাদঘাট টানেল নির্মাণের কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। ট্যানেলটি নির্মিত হলে উত্তরাঞ্চলের মানুষের জীবনমানের পরিবর্তন হবে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা মাধ্যমেই।

কঞ্চিপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ছানোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এনামুল হকের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম, ফুলছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জি.এম সেলিম পারভেজ, সাধারণ সম্পাদক এ্যাড, নুরুল আমিন, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক ফিরোজ করিব সাকা, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদ হাসান সুজা, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম জাভেদ, জেলা সেচ্ছা সেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ রঞ্জু, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোসাদ্দেক হোসেন মামুন, সাবেক আহবায়ক আব্দুল লতিফ আকন্দ, ফুলছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রাসেল বিন ওয়াহেদ ফিরোজ, ত্রাণ ও সমাজকল্যান বিষয়ক সম্পাদক মোস্তফা কামাল পাশা, কোষাধ্যক্ষ অনিক হাসান টিটু, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. জীবন কৃষ্ণ দাস, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য নির্বানেন্দু ভাইয়া প্রমুখ।

কর্মী সমাবেশে আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের বিভিন্ন ইউনিয়নের সহ¯্রাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। পরে ফুলছড়ি উপজেলার হাজার হাজার নেতাকর্মী ও জন সাধারণ যোগ দিলে কর্মী সমাবেশ এক পর্যায়ে জনসমুদ্রে পরিণত হয়।