ঢাকা, সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ , , ১ রবিউস সানি ১৪৪০

বোয়ালখালীর জ্যৈষ্ঠপুরার নৈসর্গিক সৌন্দর্য হাতছানি দিয়ে ডাকছে ভ্রমণ পিপাসুদের

মোঃ ফারুক ইসলাম বোয়ালখালী, চট্টগ্রাম । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮ ৭:৪০ সকাল

 

চট্টগ্রামের কর্ণফুলি নদীর পূর্ব পাড়ে অবস্থিত নদী আর পাহাড় দ্বারা বেষ্টিত বোয়ালখালী উপজেলা। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে আচ্ছাদিত এ উপজেলায় রয়েছে অনেকগুলো দর্শনীয় স্থান। বোয়ালখালীর উত্তর পূর্বদিকে শ্রীপুর- খরণদ্বীপের জ্যৈষ্ঠপুরার পাহাড় আর নদীর প্রাকৃতিক মিতালী ভ্রমণ পিপাসুদের হাতছানি দিয়ে ডাকছে প্রতিনিয়ত। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে- বর্তমানে বোয়ালখালীর জ্যৈষ্ঠপুরা হয়ে রাঙ্গুনীয়া গুদামঘর ও বান্দরবান সড়কটির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এ সড়কটির কারণে বর্তমানে জ্যৈষ্ঠপুরার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অবলোকন করার জন্য প্রতিদিন ছুটে আসছে হাজার হাজার ভ্রমণ পিপাসু মানুষ। জ্যৈষ্ঠপুরায় রয়েছে পাহাড়ি ভান্ডালজুড়ি খাল যা পাহাড়ি ছড়া নামে লোকজনের কাছে পরিচিত। এ ছড়াটি এঁকে বেঁকে পাহাড়ের বুক ছিঁড়ে বয়ে গিয়ে কর্ণফুলিতে পতিত হয়েছে। আরও আছে পাহাড়, লেবু বাগান, পাখ-পাখালি, পাহাড়ি জীবজন্তু। রাস্তা ধরে যতই ভেতরে যাওয়া যাবে ততই চোখে পড়বে পাহাড়ি বানরসহ নানা প্রজাতির পাখি ও জীবজন্তু। জ্যৈষ্ঠপুরার গহিন অরণ্যে রয়েছে হাতি। স্থানীয়রা হাতিকে “ম”(মামা) বলেই সম্ভোধন করে। রাস্তার পাশে পাহাড় থেকে নেমে আসা স্বচ্ছ পানির জলধারা মুগ্ধ করবে যে কাউকেই। পাহাড়ি মানুষের জীবনযাত্রা দেখার সাথে সাথে কাঁধে করে সারাদিনের পথ পাড়ি দিয়ে লেবুর ভার কাঁধে নিয়ে নিজগৃহে ফিরে আসার দৃশ্য কবি ও শিল্পী মনকে জাগিয়ে তুলবে। জ্যৈষ্ঠপুরার উত্তর দিকে রয়েছে বাঁশকল নামে প্রাকৃতিক দর্শনীয় স্থান। কর্ণফুলির কোল ঘেঁষে পাহাড় ঘেরা এই স্থানটির মনোরম প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখতে প্রতিদিন হাজার মানুষ ছুটে আসেন। অনেকেই আবার ভারম্বাঘাট থেকে নৌকা ভাড়া করে কর্ণফুলি নদীর বুকে ঘুরে বেড়ায়। স্বচ্ছ পানির স্রোত আর কর্ণফুলির পাড়ের দৃশ্য ও উত্তর দিকের রাঙ্গুনীয়ার দৃশ্য দেখে বিমুগ্ধ হন। অনেকেই আবার পাহাড়ি ছড়ার স্বচ্ছ পানিতে গোসল করে সিক্ত হন। পাহাড়ের সৌন্দর্য দেখার জন্য ভ্রমণ পিসাসু মানুষ বান্দরবান, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি, সিলেট, হিমছড়ি ছুটে যান। কিন্তু স্বল্প খরচে চট্টগ্রাম শহর থেকে স্বল্প সময়ে ঘুরে আসতে পারেন বোয়ালখালীর জ্যৈষ্ঠপুরা। ফিরে আসার পথে জ্যৈষ্ঠপুরার মাস্টার বাজারের চায়ের দোকানের গরুর খাঁটি দুধের চা খেয়ে আসতে ভুল করবেন না। চট্টগ্রামের বাস টার্মিনাল অথবা কাপ্তাই রাস্তার মাথা থেকে সিএনজি টেম্পু অথবা টেক্সীযোগে কানুনগোপাড়া পাড়া সিএনজি স্টেশন নেমে সেখান থেকে সিএনজি ভাড়া করে অথবা লোকাল সিএনজি করে সরাসরি জ্যৈষ্ঠপুরা যাওয়া যায়। যাওয়ার পথে শ্রীপুরের মুন্সির হাটে রয়েছে শত বছরের পুরোনো বুড়া মসজিদ। চাইলে কিছুক্ষণ গাড়ি থামিয়ে শত বছরের পুরনো এই মসজিদটিও দেখে যেতে পারেন।