ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৮ , , ২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯

শৈত্যপ্রবাহ থাকবে আরো ২ দিন

স্টাফ রিপোর্টার । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: জানুয়ারি ১০, ২০১৮ ৭:৫১ সকাল

দেশে এবারের শীত রেকর্ড গড়েছে। গত সোমবার তেঁতুলিয়ায় ২.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। গোটা দেশে নিদারুণ শৈতপ্রবাহে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। উত্তরাঞ্চলের অবস্থা করুণ।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্যমতে, ব্যস্ত শহর ঢাকাতেও আজকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৮.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দেশের অন্যান্য জেলাতেও তীব্র শীত পড়েছে। রোগ বাড়ছে। বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা।

আগামী শুক্রবার থেকে দেশের বেশির ভাগ এলাকায় তাপমাত্রা স্বাভাবিক অর্থাৎ সহনীয় মাত্রায় শীত থাকতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর গতকাল সন্ধ্যা ৬টা থেকে আজ সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত আবহাওয়ার পূর্বাভাস জানিয়েছে। অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। শৈত্যপ্রবাহটি আরও দু-এক দিন চলতে পারে। তবে দেশের বেশির ভাগ এলাকাতেই তাপমাত্রা ধারাবাহিকভাবে বাড়তে পারে।

গোপালগঞ্জ, সাতক্ষীরা, যশোর, কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙা অঞ্চলসহ রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের ওপর দিয়ে ভারী শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। শ্রীমঙ্গল, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম ও নোয়াখালী অঞ্চলসহ ময়মনসিংহ ও বরিশাল বিভাগ এবং ঢাকা ও খুলনা বিভাগের অবশিষ্টাংশের ওপর দিয়ে মাঝারী ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে আজ। দিনের তাপমাত্রা প্রায় অবপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে, জানায় আবহাওয়া অধিদপ্তর।

গতকাল দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল দিনাজপুরে ৪.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত সোমবার দেশের ইতিহাসে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ২.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল মঙ্গলবার তা বেড়ে ৫.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস হয়েছে।

রাজধানীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রাও কিছুটা বেড়ে ১০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস হয়েছে। দেশের অন্যান্য এলাকায় তাপমাত্রা কমবেশি ২ থেকে ৪ ডিগ্রি পর্যন্ত বেড়েছে। তারপরও চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলা ছাড়া দেশের সর্বত্র মৃদু থেকে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বয়ে গেছে।