ঢাকা, বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯ , , ১৩ রজব ১৪৪০

সকালে নাস্তা করার উপকারিতা

নিউজ ডেস্ক । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০১৯ ১১:৪৮ সকাল

কাজের তাড়াহুড়োয় বা সময়ের অভাবে সকালে নাস্তা না করাটা অত্যন্ত খারাপ যা একেবারে ঠিক নয়।

অনেকে আবার ‘সকালে খেতে পারি না’ বলে শুধু চা কফি পান করেন। তবে সকালে ঘুম থেকে উঠে ভালো মতো নাস্তা করতে পারলে সারাদিনের কর্মশক্তি যেমন পাওয়া যায় তেমনি স্থূলতাসহ নানান সমস্যা থেকেও মুক্তি মিলতে থাকে।

আসুন সকালে নাস্তার উপকারীতা সর্ম্পকে জেনে নিই:

নাস্তা বিপাক প্রক্রিয়া বাড়ায়: নাস্তায় আরামদায়ক খাবার বিপাক বাড়ায় এবং শরীরের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করে। হজমের জৈবিক প্রক্রিয়ায় সাহায্য করে। সারাদিনের জন্য পুষ্টি সঞ্চয় করে।

ক্যালরি খরচ শরীরকে সচল রাখে: আয়ুর্বেদ শাস্ত্র মতে, হজম শক্তি জ্বালানি হিসেবে কাজ করে। আর সেটা হজম ও বিপাক ক্রিয়ায় সাহায্য করে। শরীরের জ্বালানির যোগান দিতেও সকালে ভরপুর নাস্তা করা উচিত।

নাস্তা খাবারের চাহিদা কমায়: বাড়তি ক্যালরি এড়ানোর জন্য সকালের নাস্তা বাদ দেওয়া সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। সকালের নাস্তায় আঁশ ও পুষ্টি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া সারাদিনের খাবারের চাহিদা কমায়। এতে সারাদিন অন্যান্য খাবারের প্রতি কম আকর্ষণ বোধ হয় এবং শরীর সুস্থ ও সুন্দর থাকে।

সকালের নাস্তা স্মৃতিশক্তি বাড়ায়: সকালের নাস্তার রয়েছে নানামুখি উপকারিতা। এর মধ্যে স্মৃতিশক্তি বাড়ানো অন্যতম। সকালের নাস্তার কার্বোহাইড্রেট স্বাস্থ্যভালো রাখার জন্য জরুরি। ভালো নাস্তা করা হলে তা মস্তিষ্কের উপর ভালো প্রভাব রাখে। মানসিক চাপ কমায় এবং মেজাজ ভালো রাখে। তাই এরপর থেকে কাজের সময় মেজাজ খারাপ হলে খেয়াল করে দেখুন. এর প্রধান কারণ ক্ষুধা নয় তো?

স্থূলতা ঝুঁকি কমায়: গবেষণা করে দেখা গেছে, সকালে নাস্তা করলে স্থূলতাসহ নানান স্বাস্থ্য সমস্যা দূর হয়।

সকালের নাস্তা হিসেবে যা খেতে পারেন-

স্মুদি- তাৎনিকভাবে খনিজ ও ভিটামিন পেতে সকালে এক গ্লাস স্মুদি পান করতে পারেন।

রুটির টোস্টের সঙ্গে পনির- এই মজার খাবার সারাদিনের শক্তি যোগাতে সাহায্য করবে।

ডিম ভাজা, টোস্টের সঙ্গে সবজি ও মাশরুম- একবারে অনেক কিছু মনে হলেও এই খাবারের সমন্বয় সারাদিনের শক্তি যোগাতে সাহায্য করবে।