ঢাকা, বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯ , , ১৩ রজব ১৪৪০

সাবিকুন্নাহার শিউলী’র একুশের কবিতা

সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৯ ১২:২২ দুপুর

একুশের কথা 

একুশ মানেই মনে পড়ে বাহান্ন এর কথা,
একুশ মানেই ফিরে পাওয়া বাংলা ভাষায় কথা।
একুশ মানেই বাঙালির বুকে পাক সেনাদের অকারণ গুলি,
একুশ মানেই শত প্রাণের বিনিময়ে ফিরে পাওয়া মায়ের মুখের বুলি।

একুশ মানে অগ্নিঝরা রক্তের বন্যা,
একুশ মানে ছেলে হারানো শত মায়ের বুক ফাটা কান্না।
একুশ মানে লাশের পরে অগণিত লাশ,
ভুলবো না তাদের,যারা করেছিল বাংলার করুন সর্বনাশ।

একুশ মানেই ভাষার জন্য জীবন বাজি রাখা,
একুশ মানেই মধুর বাংলায় ‘মা’ বলে ডাকা।

একুশ মানেই রফিক,শফিক, জব্বর,বরকত ছালাম-
আর নাম না জানা কত শহীদের আত্মদান,
আজই একুশে সকল শহিদের চরণে জানাই-লাখো কোটি সালাম।
যতোদিন রবে এ দেহে মোর প্রাণ, তাঁদের স্মৃতি বুকে ধরে রাখবো অম্লান।

যতোই লিখি শেষ হবে না এই একুশের কথা,
শ্রদ্ধার সাথে তাঁদের স্মরণে নত করি তাই মাথা।

একুশ দিয়েছে বাংলা ভাষার অথৈ সম্মান,
তাইতো মোরা গাইতে পারি বাংলা মায়ের গান।

এ দেশ থেকে ব্যভিচারী আর অত্যাচারীরা একদিন দূর হলো,
একুশ সেদিন বাংলাভাষাকে আপন করে পেলো।

একুশ গেঁথেছে বাংলার বর্ণমালা ঘরে ঘরে অন্তরে অন্তরে,
তাইতো একুশ অমর হয়েছে আজই বিশ্বজুড়ে।

ভাষা শহীদের স্মরণে আজ বিশ্বজুড়ে অমর একুশে মেলা,
আমি গর্বিত,আমি জন্মেছি এই সোনার বাংলায়।