ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ , , ২ রবিউস সানি ১৪৪০

সেদিন যদি আমরা বঙ্গবন্ধুকন্যাকে হারাতাম তাহলে দেশ এগিয়ে যেতনা এবং উন্থান হতো অপশক্তির

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: অক্টোবর ১০, ২০১৮ ১:০৪ দুপুর

২১ শে আগষ্ট ঘৃণ্যতম গ্রেনেড হামলার মামলার রায়কে কেন্দ্র করে বিএনপির অরাজকতা-নৈরাজ্য প্রতিরোধে মোহরা কবির টাওয়ার চত্বরে মোহরা ৫ নং ওয়ার্ড “বঙ্গবন্ধু ছাত্র যুব উন্নয়ন পরিষদ” কর্তৃক অবস্থান কর্মসূচি এবং বিক্ষোভ মিছিল সাধারণ সম্পাদক কফিল উদ্দিনের সঞ্চালনায় সভাপতি মোঃ হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বঙ্গবন্ধু ছাত্র

যুব উন্নয়ন পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন চেম্বারের পরিচালক যুবনেতা আলহাজ্ব সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন, সেদিন যদি আমরা বঙ্গবন্ধুকন্যাকে হারাতাম তাহলে দেশ এগিয়ে যেতনা উন্নয়ন বঞ্চিত হতো বাংলাদেশ। উন্থান হতো অপশক্তির। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর নেতৃত্বে বাঙ্গালী জাতি স্বাধীনতার স্বাদ পায়। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি ষড়যন্ত্র করে আসছে। কারন তারা চাইনি এদেশ স্বাধীন হোক, বাঙ্গালী জাতি মাথা উঁচু করে দাড়াক। ষড়যন্ত্রের নীলনকশা অনুযায়ী তারা ১৯৭৫ সালের ১৫ ই আগস্ট জাতির পিতাকে স্বপরিবারে হত্যা করে এবং এখনো তারা দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। তারা চেয়েছিলো বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে এই দেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, জাতির পিতার আদর্শ মুছে ফেলতে। কিন্তু ষড়যন্ত্র কারীরা সফল হয়নি। বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে

হত্যার পর তারা বঙ্গবন্ধু কন্য শেখ হাসিনাকে ২১ বার হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে। ২০০৪ সালে ২১ শে আগস্ট শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে আওয়ামী লীগের জনসমাবেশে তৎকালীন খালেদা জিয়া সরকার তারেক জিয়ার নেতৃত্বে গ্রেনেড হামলা চালায়। এই নৃশংস হামলায় ২৪ জন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী শহীদ হন। তারা এই দেশকে নেতৃত্ব শূন্য করতে ঘৃণ্য অপচেষ্টা চালিয়েছিলো। আমরা সেই খুনিদের যথোপযুক্ত বিচার চাই। গ্রেনেড হামলার বিচারের রায়ে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড দেয়া হোক এটাই মাননীয় আদালতের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি যাতে করে এদেশে আর কোন স্বাধীনতা বিরোধী মৌলবাদী অপশক্তি মাথা ছাড়া দিয়ে উঠতে না পারে। আজকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। আজ বাংলাদেশ সারা বিশ্বের কাছে উন্নয়নের রুল মডেল। উন্নয়নের এই অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে এবং স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তিকে শক্ত হাতে মোকাবেলা করতে আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। সমবেত নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আবারো যাতে জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার গঠন করতে পারে সেই লক্ষে তৃণমূল

পর্যায়ে কাজ করতে হবে। উন্নয়নের সুফল ঘরে ঘরে পৌছে দিতে হবে। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু ছাত্র যুব উন্নয়ন পরিষদের উপদেষ্টা কাজী নুরুল আমিন মামুন, জসিম উদ্দিন, আয়াছ উদ্দিন, নুরুল আবছার খান, মোঃ জসিম, মোঃ জিয়া, মোঃ আলমগীর, আজম খান, জাফর আহমেদ, ওসমান গনি, মোঃ আরজু, মোঃ খোকা, নুর মোহাম্মদ। উপস্থিত ছিলেন, বঙ্গবন্ধু ছাত্র যুব উন্নয়ন পরিষদের সহসভাপতি চান মিয়া, মোঃ হারুন, শহীদুল্লাহ কায়ছার লিটন, গিয়াস উদ্দিন, মোঃ ফারুক, মোঃ আজম, ইফতেখার আবেদীন চৌধুরী, মোস্তাফিজুর রহমান রনি, দেলোয়ার হোসেন, ইমরান উদ্দিন রাজু, মোঃ সাকিব, মোস্তফা কামাল, সাইফুল ইসলাম সুরুজ। মোহরা এ ইউনিট সভাপতি মোঃ সালাউদ্দিন, সাধারন সম্পাদক কায়ছার উদ্দিন, বি ইউনিট সাধারন সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, সি ইউনিট সভাপতি মোঃ আরমান, সাধারন সম্পাদক আরিফুর রহমান মুন্না, ডি ইউনিট সভাপতি মোঃ জিমি, সাধারন সম্পাদক সাইফুল ইসলাম।